ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি হামলার ৮ম দিন: নিহত ২১২

ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি হামলা
ছবি: যুগান্তর

ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি হামলা। এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা এসে দাঁড়িয়েছে ২১২ তে। যার মধ্যে প্রায় ৬৮ জন শিশু। আহত হয়েছেন প্রায় ১৫’শ জন।

গত ৮ই মে ফিলিস্তিনের বায়তুল আকসা মসজিদে ইসরাইলি সৈন্য হামলা চালায়। যার দরুন বিক্ষোভে ফেটে পড়ে পুরো মুসলিম বিশ্ব। সেদিন থেকে শুরু হয় ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলা।

ফিলিস্তিনের গাজায় অনবরত রকেট এবং বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরাইল। এমনকি সৈন্য পাঠিয়ে গুলিবর্ষণ করা হচ্ছে নিরস্ত্র ফিলিস্তিনের উপর। ফিলিস্তিনের কিছুসংখ্যক মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে অস্ত্র ও গোলাবারুদ থাকায় পরিস্থিতির কিছুটা মোকাবেলা করতে সক্ষম হচ্ছে তারা। তবুও অসংখ্য প্রাণ হারাচ্ছে ফিলিস্তিন।

ইসরায়েল এবং হামাসের মধ্যে লড়াই থামার কোন লক্ষণই দেখা যাচ্ছে না।
photo: BBC News বাংলা

ফিলিস্তিনের উপর ইসরাইলের এমন বর্বর হত্যাকাণ্ডের জন্য বিশ্বের অনেকগুলো দেশ-ইসরাইলকে সন্ত্রাসী দেশ বলে আখ্যায়িত করে। এমনকি বাংলাদেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসরাইলকে সন্ত্রাসী দেশ বলে ঘোষণা দেন। বাংলাদেশের পাসপোর্টে এটি উল্লেখ করেছেন যে,” ইসরাইল ব্যতীত পৃথিবীর প্রতিটি দেশে এই পাসপোর্ট দিয়ে ভ্রমন করা যাবে”।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন পদক্ষেপ ও ঘোষণার জন্য দেশের জনগণ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান।

এদিকে, প্রথমে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইসরাইলের সমর্থনে থাকলেও বর্তমানে উনি ইসরাইল এবং ফিলিস্তিনের যুদ্ধ বিরতির জন্য আহবান করেন।

ইসরাইলকে সমর্থন করার কারণে বিশ্বের বিভিন্ন রাজনৈতিকবিরোধীদের ভৎসনার শিকার হতে হয় তাকে। অন্যদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ডাকা আলোচনা সভা প্রত্যাখ্যান করেন বিশ্বের বিভিন্ন মুসলিম নেতারা।

ভারত সরকার সরাসরি ইসরাইলের পক্ষ না নিলেও পরোক্ষ ভাবে বুঝিয়ে দেয় যে তারা ইসরাইলের সমর্থনে। কিন্তু, ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট তার ব্যক্তিগত টুইটারে টুইট করেন যে তিনি যুদ্ধে জেতার জন্য কোন দেশের সমর্থন চান না, অন্তত গোমূত্র পান কারীদের সমর্থন তারা চান না। ইসরাইলের প্রেসিডেন্টের এমন মতামতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ভারত সরকার।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ঘোষণা দিয়েছেন, বিশ্বের আর কোন দেশ ফিলিস্তিনের পক্ষে থাকুক বা না থাকুক তুরস্ক সব সময় থাকবে। এমনকি তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ইসরাইলের প্রেসিডেন্টকে হুমকি দিয়েছেন, যদি ইসরাইলের প্রেসিডেন্ট ফিলিস্তিনের ওপর এই হত্যাকাণ্ড না থামায় তাহলে তুরস্ক যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। এমনকি জাতিসংঘের কাছে তুরস্ক এই বিষয়টি তুলে ধরে।

বাংলাদেশ, শ্রীলংকা, সৌদি আরব, তুরস্ক, পাকিস্তান সহ বিশ্বের আরো অন্যান্য দেশ ফিলিস্তিনিদের উপর হামলা চালায় বিক্ষোভ মিছিল করে।

আরও জেনে নিন এই ব্যাপারে click here

আমাদের আরও একটি আর্টিকেল পরতে ঘুরে আসুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here